Madan Mitra: “ছেলেধরা হয় শুনেছি, পাখিধরা এই প্রথম”– মদন মিত্র ও মধুমিতা সরকারের ছবি নিয়ে চর্চা শুরু স্যোশাল মিডিয়ায়!

এবারে পুজোতে বঙ্গবাসীর মন আলোকিত করে তুলেছেন ‘কালারফুল’ নেতা মদন মিত্র(Madan Mitra)। কামারহাটির বিধায়ক মদন মিত্র, তৃণমূল কংগ্রেসের নামকরা নেতা হিসেবেই পরিচিত তিনি সকলের কাছে। তবে তিনি নিজের পরিচয়কে শুধু নেতা হিসেবে সীমাবদ্ধ রাখেন নি। বরং তিনি হয়ে উঠেছেন কালারফুল সুপারকুল মদন মিত্র।

বয়স তার ৬৫ হলেও মনের দিক থেকে এখনও তিনি ১৮ বছরের যুবক। কখনো করছেন ফেসবুক লাইভ, কখনো যাচ্ছেন দুর্গাপুজোর খুঁটি উদ্বোধন করতে, আবার রাজনৈতিক মঞ্চেও তাকে দেখা যাচ্ছে। আবার কখনো দেখা যাচ্ছে সানগ্লাস পরে,ধুতি পরে রঙীন ফটোশুট করতে আবার কখনো গানের অ্যালবাম প্রকাশ করছেন। এই সবের মাঝেও কোনো ক্লান্তি নেই তার। স্বয়ং মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তাকে ‘রঙীন’ বা ‘কালারফুল’ বলে আখ্যায়িত করেছিলেন।

মদন মিত্র প্রতিবছর পুজোতে বিভিন্ন প্যান্ডেলে যান পুজোর উদ্বোধন করতে। এই বছরেও তার অন্যথা হয়নি। তিনি এই বছর পুজোর সময়ে নিজের এলাকায় পুজো নিয়ে তো ব্যস্ত ছিলেনই। একইসাথে কলকাতা ও সংলগ্ন অঞ্চলের বেশ কিছু প্যান্ডেলে গেছিলেন বিশেষ অতিথি হিসেবে। খুব স্বাভাবিক ভাবেই সেইসব প্যান্ডেলে মদন মিত্রের পাশাপাশি অন্যান্য তারকাদেরও আমন্ত্রণ জানানো হয়েছিল। আর মদন মিত্র যেহেতু ছবি তুলতে ভালোবাসেন, তাই সেইসব তারকাদের সাথে ছবি তুলে স্যোশাল মিডিয়ায় পোস্ট করেন।

তবে সবচেয়ে চর্চিত হয়েছে যে ছবিটি, সেই ছবিতে মদন মিত্রের পাশে দেখা গেছে ধারাবাহিক এবং সিনেমার পরিচিত মুখ ‘পাখি’ ওরফে মধুমিতা সরকারকে(Madhumita Sarcar)। ছবিতে দেখা গেছে একটি প্যান্ডেলের ত্রিশূল হাতে মা দুর্গার সামনে এই দুই তারকা ছবি তুলেছেন। আর এই ছবিটি স্যোশাল মিডিয়ায় পোস্ট করেছেন মদন মিত্র নিজে। এই ছবিটি নিয়ে সমালোচনার ঝড় স্যোশাল মিডিয়ায়। কেউ লিখেছেন “ছেলেধরা হয় শুনেছি, পাখিধরা এই প্রথম” আবার কেউ লিখেছেন “এভারেস্টের পাশে পিরামিড ওহ লাভলি”। এইভাবেই বিভিন্ন মন্তব্যের মাধ্যমে ট্রোল করা হয়েছে এই দুই তারকাকে।

Leave a Comment